পরশুরাম

ভারতের বাধায় আটকে আছে বিলোনিয়ার মুহুরীর চরের দীর্ঘ দিনের সমস্যা

parshuram border

ফেনী জেলায় পরশুরাম সীমান্তে বাংলাদেশ ভারতের মুহুরীর চরের ৯২.১৪ একর সম্পত্তির সিমানা নির্ধারন ঝুলে আছে দীর্ঘদিন। এই চরের মালিকানা নিয়ে উভয় দেশের মধ্যে বহু বার গোলাগুলির ঘটনা ও ঘটেছে। এক তথ্যে জানা যায়, ১৯৪৯ সালের ২ জানুয়ারী, ১৯৭৯ সালের ১২ নভেম্বর, ১৯৭৯ সালের ২০ নভেম্বর, ১৯৭৯ সালের ১ ডিসেম্বর, ১৯৮৬ সালের ৯ এপ্রিল, ১৯৯৩ সালের ২০ নভেম্ভর, জানুয়ারী, ১৯৯৯ সালের ২২ আগষ্ট পর্যন্ত ৫৩ বার ভারত ও বাংলাদেশের মধ্যে গুলি বিনিময়ের ঘটনা ঘটে। গোলাগুলির ঘটনা ১৯৯৪ সালের ২ জানুয়ারী ভারতীয় সীমান্ত রক্ষী বাহিনী বিএসএফ এর গুলিতে বাংলাদেশের বাউর খুমা গ্রামের মুসা বেয়াধন নামের এক নাগরিক নিহত হয় এবং বহু মানুষ আহত হয়।

এ নিয়ে ২০১১ সালের ৮ আগষ্ট থেকে ৩১ আগষ্ট পর্যন্ত উভয় দেশের ভূমি মন্ত্রনালয়ের মধ্যে একটি প্রটোকল স্বাক্ষরিত হয়। এ সময় দু দেশের ভূমি মন্ত্রনালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ ও সীমান্ত রক্ষী বাহিনী উপস্থিত ছিলেন। সর্বশেষ গত ২০১৪ সালের ১৫ জানুয়ারী হতে ১৮ জানুয়ারী পর্যন্ত উভয় দেশের জরিপ বিভাগ কর্তৃক মেইন পিলারের ২১৫৯ ৩এস (৩ং) হতে ৪৮ এস (৪৮ং) পর্যন্ত মুহুরীর চরের আমিমাংসিত ভূমির সীমানা নির্ধারনের জন্য বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) এবং ভারতীয় সীমান্ত রক্ষী বাহীনি (বিএসএফ) এর সাহায়তায় যৌথ ভূমি জরিপ কার্যক্রমে পরিচালনা করে এবং ৪৪টি কাঠের সাব পিলারের অবস্থান নির্ধারন করে। এতে ৯২.১৪ একর সম্পত্তির মধ্যে বাংলাদেশ পায় ৭১.৯৪ একর এবং ভারত পায় ২০.২০ একর ভূমি।

উক্ত জরিপ কার্যক্রমের মাধ্যমে দু’ দেশ যতটুকা সম্পত্তি পেয়েছে তাতে উভয় সন্তুষ্ট হয়ে মেনে নিলে ও পরবর্তীতে ভারত আবার ও আপত্তি জানানোর কারনে বাংলাদেশের পাওনা ৭১.৯৪ একর ভূমির সীমানা নির্ধারনী ৪৪ টি কাঠের সাব পিলারের জায়গায় পাকা পিলার স্থাপন করতে পারছেনা বাংলাদেশ। যায় ফলে এখনো স্থিতিশীল অবস্থায় পড়ে আছে সেই মুহুরীর চরটি।

স্থানীয় এলাকাবাসী জানায় ভারত বাংলাদেশের যৌথ মাপের ফলে বাংলাদেশ যতটুকু ভূমি পেয়েছে তাতে আমরা খুশি। এই চরের জন্য বহু বছর যাবত আমরা অনেক কষ্ট করেছি। এই চর নিয়ে দু দেশের অনেক বার গুলাগুলি হয়েছে এতে আমাদের একজন প্রতিবেশী নিহত হয়েছে। আমরা খুশি বাংলাদেশ যদি এই ভূমিটা পায় এবং বাংলাদেশ ভারত দু’ দেশের সম্পর্ক আরো জোরালো হবে। এখানকার মানুষেরা এই জায়গা টুকুতে ফসল ফলাতে পারবে।

Comments

comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *