দাগনভূঞা নির্বাচিত রাজনীতি

দাগনভূঞায় ভোটের লড়াইয়ে কারা আসছেন

dagonbhuiya politics

দেশের অন্য ৮২টি উপজেলার পাশাপাশি দাগনভূঞা উপজেলা নির্বাচনে ভোটগ্রহণ আগামী ১৫ মার্চ শনিবার। নির্বাচনে মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার শেষ সময় ১৫ ফেব্রুয়ারি। তৃতীয় দফায় দেশের ইতিহাসে চতুর্থ উপজেলা নির্বাচনে মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই ১৭ ফেব্রুয়ারি। প্রত্যাহার ২৪ ফেব্রুয়ারি। গত বৃহস্পতিবার নির্বাচন কমিশনের ঘোষিত তফসিলে এমন তথ্য জানা যায়।

নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার  আগ থেকেই সম্ভাব্য প্রার্থীদের মধ্যে তৎপরতা লক্ষ্য করা গেলেও ৬ ফেব্রুয়ারী তফসিল ঘোষণার পর তোড়জোড় বেড়ে গেছে। স্থানীয় সরকার ব্যবস্থা শক্তিশালী করণের লক্ষ্যে দেয়া এ নির্বাচন রাজনৈতিক দলের পরিচয়ে করার বিধান না থাকলেও প্রধান দুই রাজনৈতিক দল বিএনপি-আওয়ামীলীগের টিকিট নিশ্চিত করতে দলীয় প্রার্থীরা দলের হাইকমান্ডে জোর তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছেন। শুধু তাই নয়, ফেনী-দাগনভূঞায় পৈত্রিক নিবাস এমন অনেক কেন্দ্রিয় নেতার নজর কাড়তে ইতিমধ্যে রাজধানীতে রয়েছেন অনেকে। দলের সমর্থন বঞ্চিত হলে স্বতন্ত্র প্রার্থীর তালিকায়ও থাকতে পারেন কেউ কেউ।

সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো থেকে প্রাপ্ত তথ্যে জানা যায়, এবারের দাগনভূঞা উপজেলা নির্বাচনে বর্তমান চেয়ারম্যান ও জেলা যুবলীগের আহ্বায়ক দিদারুল কবির রতনের দলীয় সমর্থন অনেকটা নিশ্চিত। এছাড়াও আওয়ামী ঘরানার চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হিসেবে  ঢাকাস্থ উইন ইন্টারন্যাশনাল এর স্বত্ত্বাধীকারী এম আবদুল হাই মিলন এর নাম শোনা যাচ্ছে। দীর্ঘদিন অসুস্থ্য সত্বেও দিদারকে ঠেকাতে দলের বিরোধী অংশ মিলনকে মাঠে আনতে নানাভাবে চেষ্টা তদ্বির করছেন। অপরদিকে দাগনভূঞা পৌরসভার সাবেক মেয়র ও উপজেলা বিএনপির সভাপতি আকবর হোসেন অথবা গতবারের প্রার্থী তার বড় ভাই সেলিম প্রার্থী হতে পারেন বলে গুঞ্জন রয়েছে। এছাড়া উপজেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি দেলোয়ার হোসেন, উপজেলা জামায়াতের আমীর এএসএম নুরনবী দুলাল, উপজেলা বিএনপির সহ-সভাপতি ও রামনগর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান আবুল হাশেম বাহাদুর, সদর ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি রফিকুল ইসলাম সম্ভাব্য প্রার্থী তালিকায় আলোচিত হচ্ছে।

অন্যদিকে ভাইস চেয়ারম্যান পদে বর্তমান উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক জয়নাল আবেদীন মামুন ছাড়াও গতবারের প্রার্থী সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান ওবায়দুল হক ছুট্টু, কেন্দ্রীয় যুবলীগের সদস্য মো: আলমগীর হোসেন (আফ্রিকা), ঢাকাস্থ ইনস্ট্যান্স ইন্টারন্যাশনালের স্বত্ত্বাধীকারী ও জামায়াত নেতা মেজবাহ উদ্দিন সাঈদ লিটন,    পূর্বচন্দ্রপুর মডেল ইউপির সাবেক চেয়ারম্যন আবদুল হাই সবুজ, পৌর যুবলীগের সভাপতি নুরুল আফসার, উপজেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম-আহ্বায়ক আজিজুল হক রাসেল প্রার্থী হতে আগ্রহী বলে শোনা যাচ্ছে।
এছাড়া মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে সম্ভাব্য প্রার্থীরা হচ্ছেন- বর্তমান উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ও উপজেলা মহিলা দলের সভাপতি জাহানারা বেগম, ইয়াকুবপুর ইউপির ওয়ার্ড মেম্বার ও আওয়ামীলীগ নেত্রী শেফালি আক্তার, আওয়ামীলীগ নেত্রী রোকসানা সিদ্দিকা ও আরজুমান আরা।

 

সুত্র: ফেনীর সময়

Comments

comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *